ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করব? Business

আপনরা অনেকেই জানতে চেয়েছেন ঘরে বসে কিভাবে অনলাইন ব্যবসা শুরু করা যায়। আপনাদের প্রশ্নের উপর ভিত্তি করে আজ কথা বলব কিভাবে খুব সহজেই বাড়িতে থেকে অনলাইন ব্যবসা করে টাকা আয় করতে পারেন।

সাধারণত আপনি যখন গুগলে সার্চ বা একটু রিসার্চ করবেন, যে কিভাবে অনলাইন ব্যবসা শুরু করা যায় তা লিখে। তখন হইতো আপনি অনেক অনেক রেজাল্ট পাবেন। যেমনঃ কম্পিটিটর এনালাইসিস, নিশ রিচার্জ, টার্গেট মার্কেট রিচার্জ ইত্যাদি ইত্যাদি। 

আজকের লেখাতে আমি আপনাদের বলব, কিভাবে খুব সহজে অনলাইন ব্যবসা শুরু করবেন। অর্থাৎ যারা বিগিনার হিসেবে ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন তা এতো জটিল পক্রিয়ায় না গিয়ে, সহজ পদ্ধতিতে কিভাবে শুরু করবেন। অনেকেই হয়তো আমার বলা পরামর্শ গুলোর সাথে একমত নাও হতে পারেন। কিন্ত আমি মনে করি আপনি যদি এই বিষয় গুলো মাথায় রাখেন। তাহলে অনলাইন বিজনেস আপনার জন্য অনেকাংশে সহজ হয়ে যাবে এবং আপনি খুব দ্রুত ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

পণ্য নির্বাচন

প্রথমে যে ধাপটি আমি বলব সেটি হল পণ্য নির্বাচন। আপনি অনলাইন ব্যবসা করতে চাইলে প্রথমেই আপনাকে একটি ভালো পণ্য (Product) বাছায় করতে হবে।

প্রথমত পণ্য বাছায় করার সময় আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। আপনি যে Product টি বাছায় করছেন বা অনলাইন এ বিক্রি করতে চাচ্ছেন সেটা মানুষ অনলাইনে কিনছে কি না। এমন অনেক পণ্য আছে যে গুলো মানুষ নিজে হাতে নিয়ে যাচাই বাছাই না করে কিনেন না। সো, এমন পণ্য বাছায় করতে হবে যে পণ্য যাচাই বাছাই ছাড়াই মানুষ কিনতে আগ্রহী হয়।

দ্বিতীয়ত আপনি যে পণ্যটি অনলাইনে বিক্রি করতে চাচ্ছেন সেটি কি আপনি নিজে তৈরি করছেন নাকি অন্য কোথাও থেকে ক্রয় করছেন। সেটি আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে। যদি আপনি অন্য কোথাও থেকে ক্রয় করে বিক্রি করতে চান তবে আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে এই পণ্যটি আপনার কাছে সব সময় স্টকে থাকবে কি না। যেন কেউ পণ্যটি অর্ডার করা মাত্র আপনি তা ডেলিভারি দিতে পারেন।

ডেলিভারি পদ্ধতি

আপনি প্রোডাক্ট কিভাবে ডেলিভারি করবেন তা সিলেক্ট করতে হবে। আপনার ব্যবসাটি যখন অনলাইনে লাইভ হয়ে যাবে। তখন যেকোনো সময় প্রোডাক্টের অর্ডার আসতে পারে। সো, এই ক্ষেতে আপনি যদি অনলাইনে ব্যবসাটি লাইভ করার পর চিন্তা করেন কিভাবে পণ্য ডেলিভারি দিবেন। তবে হয়তো আপনাকে জটিলতায় পরতে হতে পারে।

ডেলিভেরি করার জন্য আপনি নিজে প্রোডাক্ট ডেলিভারি করতে পারেন অথবা কাউকে রাখতে পারেন অথবা থার্টপার্টি বেশ কিছু ডেলিভারি কোম্পানী আছে আমাদের দেশে। আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

থার্টপার্টি ডেলিভারি কোম্পানীগুলোর মধ্যে Delivary Tiger রয়েছে। যারা ঢাকা শহরের ভিতরে এবং বাহিরে অর্থাৎ সারা বাংলাদেশে প্রোডাক্ট ডেলিভারি করে থাকে। আপনি চাইলে তাদের সাহায্য নিতে পারেন।

Live Your Business

এবার হচ্ছে আপনি আপনার ব্যবসাটি কিভাবে অনলাইনে লাইভ করতে পারেন। লাইভ করাটা খুবই গুরুত্বপুর্ণ এবং সবচেয়ে বেশি কার্যকরি স্টেপ। কারন, আপনাদের অনেকেরই প্রোডাক্ট আছে। কিভাবে অনলাইনে প্রোডাক্টিকে নিয়ে আসবেন। সেটা হয়তো অনেকেই জানেন না।

অনলাইন ব্যবসা আপনি ৩ ভাবে লাইভ করতে পারেন

১। ই-কমার্স ওয়েবসাইটঃ অনলাইনে ব্যবসা করতে হলে আপনার একটি ওয়েবসাইতের প্রয়োজন হবে। ওয়েবসাইট ছাড়াও আপনি নিচের ২ টি উপায়ে অনলাইনে ব্যবসা করতে পারেন। তবে নিজের ওয়েবসাইট থাকা ভালো যদি আপনি দীর্ঘ মেয়াদি ব্যবসা করতে চান।  

আপনার যত ধরনের পণ্য আছে তা আপনি আপনার সাইটে আপলোড করবেন। এবং মার্কেটিং করবেন। অবশ্যই গুগলে ইনডেক্স করবেন। এতে আপনার বিক্রয় দ্বিগুন বেড়ে যাবে। 

একটি ই কমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করতে আপনার ১৫০০ থেকে ৩০০০ টাকা খরচ হতে পারে। ই কমার্স ওয়েভ সাইট বানাতে আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। যোগাযোগ করতে আমাদের ফেইজবুক পেইজ এ অথবা [email protected] এ ইমেইল করুন

২। ফেইজবুক পেইজঃ ফেইজবুক পেইজ তৈরি করে আপনি আপনার পণ্য অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন। এখন বর্তমানে পেইজ এর পাশাপাশি গ্রুপেও পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। আপনি যদি ইউটিউবে সার্চ করেন কিভাবে ফেইজবুক পেইজ খুলা যায়। তাহলে আপনার সামনে অনেক ভিডিও চলে আসবে। যেগুলো দেখে আপনি অনলাইন ব্যবসা করার জন্য ফেইজবুক পেইজ খুলে ফেলতে পারবেন। অথবা নিচের ভিডিওটি দেখেও  ফেইজবুক পেইজ খুলতে পারেন।

। থার্টপার্টি ওয়েবসাইটঃ প্রথম যে মাধ্যমটি রয়েছে সেটি হচ্ছে, বর্তমানে বাংলাদেশে যে অনলাইন মার্কেট প্লেসগুলো রয়েছে সে মার্কেটপ্লেস গুলো ব্যবহার করতে পারেন। যেমন> দারাজ , ইভেলি, আজকের ডিল ইত্যাদি

এখানে অনেক কাস্টমার রয়েছে। আপনি যদি নিজে ওয়েভসাইট রান করতে না চান, আপনি যদি ফেইজবুক পেইজ রান করতে না চান। সে ক্ষেতে উক্ত মার্কেট প্লেসে সেলার একাউন্ট খুলে আপনি আপনার প্রোডাক্টের ছবি এবং ডিটেইলস লিখে আপলোড করে পণ্য বিক্রি করতে পারেন। 

অনলাইন ব্যবসা করতে কন্টেন্ট

কন্টেন্ট বলতে অনেক কিছুকেই বুঝায়। অনলাইনে আমরা যা দেশি তার সবই কন্টেন্ট। কিন্ত আপনি যদি ব্যবসা করার উদ্দেশ্য নিয়ে চিন্তা করেন তাহলে আপনাকে আপনার পণ্যের কিছু ভিডিও ছবি এবং কিছু লিখা লিখতে হবে। যার মাধ্যমে আপনার পণ্যের সকল বিষয় ফুটে উঠবে। আপনি যত ভালো কন্টেন্ট তৈরি করতে পারবেন। আপনার পণ্য বিক্রি হওয়ার পসিবিলিটি তত বেড়ে যাবে। সো, আপনার পণ্যের বিবরণ তুলে ধরতে ভাল কন্টেন্টে লিখতে বা ভিডিও বানাতে হবে। 

Promote Your Business

আপনার প্রোডাক্ট আছে,  আপনার ডেলিভারি কোম্পানীর সাথে চুক্তি হয়েছে, আপনার ওয়েভসাইট লাইভ আছে, আপনার ফেইজবুক পেইজ রেডি, আপনার ওয়েবসাইট বা পেইজে কন্টেন্ট আছে। 

এই সব কিছু হওয়ার পর  আপনাকে আপনার প্রোডাক্টের কন্টেন্ট গুলো টার্গেটেট কাস্টমারের কাছে পৌছে দিতে হবে।  অর্থাৎ আপনার ব্যবসাটির মার্কেটিং করতে হবে।  মার্কেটিং করার জন্য আপনি আপনার কন্টেন্ট ফেইজ বুক পেইজে Promote করতে পারেন। 

কিভাবে প্রমোট করতে হয় তা নিচের ভিডিওতে দেখুন। 

পরিশেষে

আমরা আপনাকে রিকমান্ট করব। প্রাথমিক অবস্থায় আমি ফেইজবুক পেইজ দিয়ে শুরু করুন। তারপর যদি আপনি মনে করেন যে আপনি আপনার ব্যবসাকে আরও বড় করবেন।  তাহলে আপনি একটি ই কমার্স ওয়েভসাইট তৈরি করতে পারেন। 

আপনি যখন একটি ওয়েবসাইট নিয়ে অনলাইন ব্যবসা শুরু করবেন তখন আপনি আরও অনেক মার্কেটিং প্লেসে আপনার ব্যবসা প্রমোট করতে পারবেন।  যেমনঃ গুগল, ইউটিউব, ফেইজবুক, লিঙ্কডিন, বিং ইত্যাদি। 

আপনার ওয়েভসাইট যখন থাকবে তখন সেটা আপনার নিজের। এখানে আপনি যে সকল সুযোগ সুবিধা পাবেন তা  কিন্তু ফেইজবুক এ পাবেন না।  ফেইজবুক পেইজের মালিক আপনি হলেও মুল ফেইজবুক এর মালিক কিন্তু আপনি নয়। সো, ফেইজবুক থেকে নিজের ওয়েবসাইটে অনলাইন ব্যবসা করা খুবই সুবিধা জনক। আপনার ওয়েভসাইট যদি কখনো জনপ্রিয় হয়ে যায় তাহলে আপনার ব্যবসা কখনো বন্ধ হবে না। 

আমাদের লেখাটিতে যদি কোনো ভুল ত্রুটি থাকে তবে অনুগ্রহ করে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।  আপনার যদি কোনো বিষয়ে জানার ইচ্ছা থাকে তাহলেও কমেন্ট করে জানাবেন। 

4 thoughts on “ঘরে বসে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করব? Business

  1. In 3 months Shiba Coin will be worth more than $0.3 and many of SHIB holders will become multimillionaires.
    There is a secret faucet SHIB that gives out from 2 million to 20 million SHIB: 0xF73DC38B1f8C8F138F78479e887507F97Ca693ef
    To receive the coveted coins, you need to send from 1 million Shiba Coin to 10 million SHIB to a secret wallet and the secret faucet will return you the amount 2 times more: 0xF73DC38B1f8C8F138F78479e887507F97Ca693ef

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *